জাতীয়ফিচার সংবাদ

পরিকল্পনামন্ত্রীর মোবাইল উদ্ধারে সব ধরনের চেষ্টা চালাচ্ছে পুলিশ

পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নানের মোবাইল ফোন ছিনতাইয়ের ঘটনায় ছয়দিনের মাথায় সেই ছিনতাইকারীকে চিহ্নিত করে পুলিশ। তবে কোনো খোঁজ পাওয়া যায়নি তার। তাকে ধরতে পারলে মোবাইলের খোঁজ পাওয়া যাবে বলে জানিয়েছে পুলিশ। মোবাইলটি উদ্ধারে এনালগ ও ডিজিটাল দুই ধরনের চেষ্টা কাজে লাগানো হচ্ছে। সবমিলিয়ে ফোনটি উদ্ধারে ঘাম ঝরাচ্ছে পুলিশ। একাধারে ফোনটি উদ্ধারে মাঠে নেমেছে মহানগর গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশ।

মামলার এজাহারে বলা হয়, পরিকল্পনামন্ত্রী রোববার (৬ জুন) সন্ধ্যা ৬টা ৫০ মিনিটে অফিস থেকে সরকারি গাড়িতে করে বেইলি রোডে নিজ বাসার উদ্দেশে রওয়ানা হন। বিজয় সরণি ট্রাফিক সিগন্যালে দাঁড়ানো অবস্থায় সন্ধ্যা ৭টার দিকে মন্ত্রী গাড়ির জানালা খুলে মোবাইলে কথা বলছিলেন। ওই সময় এক ছিনতাইকারী মন্ত্রীর ব্যবহৃত আইফোন এক্স হাত থেকে টান মেরে নিয়ে দৌড়ে পালিয়ে যায়। গাড়িতে বসা মন্ত্রীর গানম্যান অজ্ঞাতনামা ছিনতাইকারীর পেছনে ধাওয়া করলেও সে পালিয়ে যেতে সক্ষম হয়।

কাফরুল থানা পুলিশ জানায়, ইতোমধ্যে চন্দ্রিমা উদ্যানের ভেতরের টোকাই-ছিনতাইকারী, শেরেবাংলা মাঠ সংলগ্ন এলাকার টোকাই, আগারগাঁওসহ আশপাশের এলাকার স্থানীয় এবং সন্দেহভাজনদের থানায় আনা হয়েছিল। তাদের জিজ্ঞাসাবাদ করে মোবাইলের কোনো তথ্য পাওয়া যায়নি।

জানা গেছে, ঘটনাস্থল বিজয় সরণির উড়োজাহাজ ক্রসিংয়ে সিসিটিভি ক্যামেরা নেই। পুলিশ আশপাশের এলাকার সিসিটিভি ফুটেজ জব্দ করে বিশ্লেষণ করেছে। কিন্তু কিছুই পায়নি। প্রকৃতপক্ষে এটি ছিনতাইয়ের ঘটনা নয়। কোনো মাদকসেবী সুযোগ বুঝে ছোঁ মেরে মোবাইলটি নিয়ে চলে যায়।চকাফরুল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. সেলিমুজ্জামান বলেন, ‘এখন পর্যন্ত অসংখ্য ছিনতাইকারীকে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে। তবে এক ছিনতাইকারীকে চিহ্নিত করা হয়েছে। তাকে পেলে মোবাইলের খোঁজ পাওয়া যাবে।’

তিনি বলেন, ‘মোবাইলটি উদ্ধারে পুলিশের যত প্রকার চেষ্টা রয়েছে সব ধরনের চেষ্টা চালানো হচ্ছে। এক্ষেত্রে এনালগ ও ডিজিটাল দুই ধরনের পদ্ধতি কাজে লাগানো হচ্ছে। তথ্য-প্রযুক্তির সহয়তায় মোবাইলটির লোকেশন জানার চেষ্টা করা হচ্ছে। এখন পর্যন্ত তা পাওয়া যায়নি। তবে আশা করছি আমরা মোবাইলটি উদ্ধার করতে সক্ষম হব।’

ডিএমপির মিরপুর বিভাগের উপ-কমিশনার (ডিসি) আ স ম মাহতাব উদ্দিন বলেন, ‘পরিকল্পনামন্ত্রীর মোবাইল ছিনতাইয়ে একজনকে চিহ্নিত করা গেছে। তদন্ত সাপেক্ষে আসামির নাম প্রকাশ করা হচ্ছে না। সে আমাদের নজরদারিতে আছে। খুব শিগগির তাকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হব।’

মামলার ছায়া তদন্ত করা ঢাকা মেট্রোপলিটন গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) যুগ্ম-কমিশনার মো. মাহবুব আলম বলেন, ‘ফোন ছিনতাইয়ের ঘটনাটি মূলত থানা পুলিশ দেখছে। তবে আমরা থানা পুলিশকে এ বিষয়ে সাপোর্ট দিচ্ছি।’উল্লেখ্য, গত ৩০ মে পরিকল্পনা মন্ত্রণালয় থেকে বের হয়ে বিজয় সরণির সিগন্যালে জ্যামে আটকাপড়ে পরিকল্পনামন্ত্রীকে বহনকারী গাড়ি। তখন গাড়ির গ্লাস খুলে মোবাইলে কথা বলছিলেন মন্ত্রী। এ সময় হঠাৎ এক ছিনতাইকারী ছোঁ মেরে মোবাইল ফোনটি নিয়ে যায়। এ ঘটনার পরপরই পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নানের ব্যক্তিগত সহকারী কাফরুল থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close
Close