Google search engine
Homeস্বাস্থ্য ও রূপচর্চাকরোনায় মৃত্যুর ঝুঁকি কমাতে ভিটামিন ডি এর গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা

করোনায় মৃত্যুর ঝুঁকি কমাতে ভিটামিন ডি এর গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা

যাদের ভিটামিন ডি’র ঘাটতি রয়েছে তাদের তুলনায় যারা পর্যাপ্ত পরিমাণে এই ভিটামিন গ্রহণ করেন তাদের কোভিড-১৯ সংক্রমণে মৃত্যুর ঝুঁকি ৫২ শতাংশ কম। নতুন এক গবেষণায় এ তথ্য উঠে এসেছে।

আমাদের ইমিউন সিস্টেম অর্থাৎ রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা তৈরিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে ভিটামিন ডি। এমনকি এটি শরীরে বিভিন্ন ধরনের প্রদাহের ক্ষেত্রেও বেশ কার্যকরী। করোনাভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে ভিটামিন ডি’র বিভিন্ন বৈশিষ্ট্য মানুষের দেহে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে।

করোনাভাইরাসের কারণে যাদেরকে বেশ ভুগতে হয়েছে তাদের মধ্যে বেশিরভাগ মানুষের ক্ষেত্রেই দেখা গেছে যে, তাদের দেহে ভিটামিন ডি’র ঘাটতি অনেক বেশি। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, যারা করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন তাদের দেহে ভিটামিন ডি খুবই গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে পারে।

বোস্টন ইউনিভার্সিটির ড. মাইকেল হোলিক তার আগের একটি গবেষণায় দেখেছেন, যারা পর্যাপ্ত ভিটামিন ডি গ্রহণ করেন তাদের করোনাভাইরাসের সংক্রমণ হওয়ার আশঙ্কা ৫৪ শতাংশ কম।

ওই গবেষণায় তিনি এবং তার টিম দেখতে পেয়েছেন যে, যাদের দেহে ভিটামিন ডির ঘাটতি রয়েছে তাদের অসুস্থ হওয়ার সম্ভাবনা বেশি, বিভিন্ন ধরনের জটিলতায় বেশি ভোগেন এবং অনেক ক্ষেত্রেই করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে প্রাণ হারাচ্ছেন।

অন্যান্য রোগে আক্রান্তদের ক্ষেত্রে দেহে ভিটামিন ডি’র অভাব করোনায় আক্রান্তের ঝুঁকি অনেক বাড়িয়ে দেয়। ভিটামিন ডি’র প্রধান উৎস সূর্যের আলো। যারা প্রতিদিন এই ভিটামিন গ্রহণ করছেন তাদের মধ্যে ঠিক কী পরিমাণ মানুষ করোনা থেকে প্রাণে বেঁচে যাচ্ছেন তা এখনও পরিষ্কার নয়।

তবে আমরা জানি যে, যুক্তরাষ্ট্রের প্রায় ৪২ শতাংশ মানুষের দেহেই ভিটামিন ডি’র ঘাটতি রয়েছে। যদি এই তথ্য সত্যি হয়ে থাকে তবে যুক্তরাষ্ট্রে করোনায় আক্রান্ত হয়ে এতো বেশি মৃত্যুর জন্য ভিটামিন ডি’র ঘাটতি অন্যতম।

ওয়ার্ল্ডোমিটারের পরিসংখ্যান অনুযায়ী, যুক্তরাষ্ট্রে এখন পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছে ২ লাখ ৮ হাজার ৪৪০ জন। হয়তো ভিটামিন ডি পর্যাপ্ত পরিমাণে গ্রহণ করলে এতো বেশি মৃত্যুর ঘটনা ঘটত না।

করোনাভাইরাসের ঝঁকি কমাতে ভিটামিন ডি সাপ্লিমেন্ট গ্রহণ করা উচিত কীনা তা নিয়ে এখনও বিতর্ক রয়েই গেছে। তবে এ বিষয়ে সবাই একমত যে, এই ভিটামিন সংক্রমণের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা তৈরিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে এবং দেহে প্রদাহের মাত্রা কমিয়ে আনতে সক্ষম।

ড. হলিক বলছেন, নতুন গবেষণা সরাসরি প্রমাণ করছে যে, ভিটামিন ডির ঘাটতি রোগের জটিলতাকে কমাতে সক্ষম। বিশেষ করে সাইটোকিন স্টর্ম এবং কোভিড-১৯ সংক্রমণে মৃত্যুর ঝুঁকি কমানো।

তেহরানের একটি হাসপাতালে ভর্তি হওয়া কোভিড-১৯ আক্রান্ত ২৩৫ রোগীর দেহ থেকে রক্তের নমুনা সংগ্রহ করেছিলেন ড. হলিক এবং তার সহকর্মীরা। এদের মধ্যে ৬৭ শতাংশ রোগীর দেহে ভিটামিন ডি ছিল ৩০ ন্যানোগ্রামের নিচে।

ভিটামিন ডি’র আদর্শ মাত্রা এখনও পরিষ্কার নয়। তবে ৩০ ন্যানোগ্রাম পর্যন্ত পর্যাপ্ত বিবেচনা করা হয়। এর কম হলেই অপর্যাপ্ত ধরা হয়। যুক্তরাষ্ট্রে নার্সিং হোমে থাকা প্রায় ৬০ শতাংশ বয়স্ক লোকের দেহে ভিটামিন ডি’র ঘাটতি রয়েছে বলে ধারণা করা হয়।এর প্রধান কারণ হিসেবে বিবেচনা করা হয় যে, তারা বাড়ির বাইরে কম সময় কাটান। ফলে সূর্যের আলো তেমন একটা পান না। যার কারণে প্রাকৃতিকভাবে তারা ভিটামিন ডি পাচ্ছেন না।

RELATED ARTICLES

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

- Advertisment -
Google search engine

Most Popular

Recent Comments